গরমে শিশুকে সুস্থ রাখুন

পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন
  • 265
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
    265
    Shares

গরমে শিশুকে সুস্থ রাখুন

প্রচণ্ড গরম ও গ্রীষ্মের দাবদাহে শিশুরা অসুস্থ হয়ে পড়ছে। এই আবহাওয়ায় শিশুদের দিকে বিশেষ খেয়াল রাখা জরুরি। পানিশূন্যতা ও হিট স্ট্রোকের মতো জটিল সমস্যা হতে পারে শিশুদের। এ বিষয়ে কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ তথ্য:

”ফেসবুক পেজ লাইক করুন”

পানিশূন্যতা:

শিশুরা ঘামে বেশি। নড়াচড়া বা খেলাধুলাও করে বেশি। তাই তাদের শরীর দ্রুত পানি হারায় এবং সহজেই পানিশূন্যতায় আক্রান্ত হয়। কীভাবে বুঝবেন শিশু পানিশূন্যতায় ভুগছে? শুষ্ক জিব ও ঠোঁট, চোখ গর্তে ঢুকে যাওয়া, ত্বকে খসখসে ভাব—এগুলোই লক্ষণ। খেয়াল করুন, শিশুর যথেষ্ট প্রস্রাব হচ্ছে কি না। প্রস্রাবের পরিমাণ কমে গেলে বা রং গাঢ় হয়ে এলে ধরে নিতে হবে, সে পানিশূন্যতায় আক্রান্ত হয়েছে। পিপাসা লাগার আগেই শিশুকে নিয়মিত বিরতিতে পানি পান করতে বলুন। ডাবের পানি, ফলের রস উপকারী। স্কুলে শিশু যথেষ্ট পানি পান করছে কি না খেয়াল রাখুন। বোতল বা ফ্লাস্কে ভরে পানি দিয়ে দিন, যেন অবশ্যই শেষ করে। প্রয়োজনে দুই বোতল বা দুটি ফ্লাস্ক ভরে বিশুদ্ধ পানি দিন।

হিট ক্র্যাম্প:

খুব গরমে বেশি ঘেমে গেলে শরীর পানির সঙ্গে সঙ্গে লবণও হারায়। তখন হাত-পায়ের বা পেটের মাংসপেশিতে ব্যথা হয় বা কামড়ায়। তা ছাড়া মাথা ঘোরে, ঝিমঝিম করে, বমির ভাব হয় বা চেতনা কমে যায়—এগুলো হিট এক্সোসনের লক্ষণ। এমন পরিস্থিতিতে শিশুকে দ্রুত ঠান্ডা বাতাসের মধ্যে নিতে হবে এবং তার শরীরের পানিশূন্যতা দূর করতে হবে।

হিট স্ট্রোক:

শিশুদের ত্বকের পরিধি কম, তাপ বিকিরণের পদ্ধতিও কম সক্রিয়। তাই তারা সহজেই হিট স্ট্রোকে আক্রান্ত হতে পারে। হিট স্ট্রোক হলে শরীরের তাপমাত্রা বেড়ে যায়, ঘাম শুকিয়ে যায়, শিশু উল্টাপাল্টা বলে বা অজ্ঞান হয়ে পড়ে। এমন অবস্থায় তার জামাকাপড় খুলে দিয়ে ঠান্ডা বাতাসে নিতে হবে, ঠান্ডা পানিতে ভেজানো কাপড় দিয়ে গা মুছে দিতে হবে। পানি মুখে পান করতে না পারলে শিরায় স্যালাইন দিতে হতে পারে।

ফেসবুক গ্রপ জয়েন করুন

এই গরমে দুপুরের রোদে শিশুদের বাইরে খেলতে দেবেন না। বিকেল পড়ে এলে খেলতে পারে। তবে খেলার আগে-পরে ও মাঝখানেও নিয়মিত বিরতিতে পানি পান করবে। হালকা সুতি জামাকাপড় পরিয়ে দেবেন। ঘামে ভেজা জামা এসেই পাল্টে ফেলবে। প্রতিদিন গোসল করাতে হবে।

আরও পড়ুনঃ কেন খালি পেটে লিচু খাওয়া বিপদজনক?

গণ সচেতনতায় ডিপিআরসি হসপিটাল লিমিটেড

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

five × three =