শক্ত ও মজবুত হাড় পেতে যা যা করতে হবে

পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন
  • 1.7K
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
    1.7K
    Shares

শক্ত, মজবুত ও সুঠাম শরীর গঠনের জন্য সবচাইতে বেশি প্রয়োজনীয় হচ্ছে শরীরের হাড়। এই হাড়ের মাধ্যমেই আমাদের দেহ সঠিক আকারে দাঁড়াতে পারে। একটি বাড়ি নির্মাণে যেমন রড বাড়িটির অবকাঠামো গড়ে তোলে, ঠিক তেমনি হাড়ও শরীরের অবকাঠামো গড়ে তোলে। আমাদের দেহকে ধারণ করে রাখে দেহের ভেতরে হাড়ের তৈরি কঙ্কাল। যদি হাড়ের গঠনে একটু ভিন্নতা আসতো তবেই আমরা হয়ে যেতাম জড় পদার্থ। কিন্তু আমরা এতো গুরুত্বপূর্ণ এই জিনিসটির যত্নে সাধারণত তেমন কিছুই করি না।

আর এর ফলেই অনেক কম বয়স থেকেই সাধারণত হাড়ের বিভিন্ন রোগ হাড়কে নষ্ট করে শরীরকে ধীরে ধীরে অক্ষম করে ফেলে। একদম শিশুকাল থেকেই হাড়ের যত্ন নেয়ার অভ্যাস না থাকলে কম বয়সেই হাড়ের ভঙ্গুরতা বৃদ্ধি পেতে শুরু করে। হাড় হয়ে পড়ে দুর্বল এবং নরম। বয়স্ক হওয়ার আগেই হাঁটাচলার ক্ষমতা কমে যেতে শুরু করে। সুতরাং যদি কম বয়সেই অক্ষমতাকে বরণ করতে না চান তাহলে হাড়কে মজবুত করার জন্য অবশ্যই শুরু থেকেই ভাবতে হবে এবং করতে হবে হাড়ের সুস্থতায় বেশ কিছু কাজ। মজবুত হাড় পেতে মেনে চলতে হবে কিছু নিয়ম-কানুন।

আপনার স্বাস্থ্য বিষয়ক যেকোন তথ্য জানতে আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন।
লাইক, কমেন্ট ও শেয়ার করে সাথেই থাকুন

ভিটামিন ডি এর অভাব

কোনভাবেই ভিটামিন ডি এর অভাব দেহে পড়তে দেওয়া যাবে না। খাবারের মাধ্যমে আমরা যে ক্যালসিয়াম দেহে নিয়ে থাকি তা হাড় দ্বারা শোষণ হয় ভিটামিন ডি এর মাধ্যমে। যদি দেহে ভিটামিন ডি এর অভাব থাকে তবে ক্যালসিয়াম সমৃদ্ধ খাবার খাওয়ার পরেও হাড়ের সমস্যা থেকে মুক্ত পাবেন না। সুতরাং দেহে ভিটামিন ডি এর অভাব পূরণেও কাজ করতে হবে আপনাকে। যেসকল সহজলভ্য খাদ্যে ভিটামিন ডি থাকে:

  • মাছ
  • মাছের তেল
  • দুধ
  • সয়া দুধ
  • ফলমূলে রয়েছে ভিটামিন ডি।

বিনা পয়সায় সূর্যের আলোর মাধ্যমেও দেহে ভিটামিন ডি এর চাহিদা পূরণ করা সম্ভব। আর এর জন্য সকাল ৯ টার আগে মাত্র ১০ মিনিট সূর্যের আলোতে বসুন! বাস্ হয়ে গেল…।

প্রতিদিন পুষ্টিকর খাবার খাওয়া

শক্ত, মজবুত হাড়ের জন্য আপনার খাদ্যতালিকায় অবশ্যই ক্যালসিয়াম সমৃদ্ধ খাবার রাখতে হবে প্রতিনিয়ত। স্বাদের কথা বাদ দিয়ে নজর দিতে হবে পুষ্টিকর খাবার-দাবারের প্রতি। প্রতিদিন কম ফ্যাট যুক্ত দুধ ও দুগ্ধজাত খাবার খেতে হবে। আপনার খাদ্য তালিকায় যে খাবারগুলো রাখতে পারেন প্রতিদিন যেমন:

  • দুধ
  • ডিম
  • কাঠবাদাম
  • ক্যালসিয়াম সমৃদ্ধ সামুদ্রিক মাছ
  • সবুজ শাকসবজি
  • ব্রকলি

প্রচুর পরিমাণে ফলমূল রাখতে হবে আপনার নিয়মিত খাদ্য তালিকায়। এতে করেই আপনি পেতে পারেন শক্ত, মজবুত হাড়।

শারীরিক পরিশ্রম বা ব্যায়াম করার অভ্যাস

শারীরিক পরিশ্রম খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। এটা শরীরকে সুস্থ রাখার পাশাপাশি হাড়কেও সুস্থ স্বাভাবিক রাখে ও শক্ত মজবুত হতে সাহায্য করে। বিশেষত যারা একটানা বসার কাজ করেন তাদের দেহের হাড়ের ভঙ্গুরতা বৃদ্ধি পায় বেশি। যারা একেবারেই শারীরিক পরিশ্রম করেন না তাদের হাড় অপেক্ষাকৃত নরম ও দুর্বল হয়ে পড়ে খুব দ্রুত ও ভঙ্গুরতাও দেখা দেয়। তাই যথা সম্ভব নিয়মিত শারীরিক পরিশ্রম করুন। শারীরিক পরিশ্রমের জন্য আপনি করতে পারেন যেমন:

  • শারীরিক ব্যায়াম
  • খেলাধুলা
  • নাচ
  • সাইকেল চালানো
  • সাঁতার কাটা ইত্যাদি

এগুলো বেশ ভালো শারীরিক পরিশ্রম যা হাড়কে মজবুত করে তোলতে সাহায্য করে থাকে।

মানসিক চাপ

আপনাকে যথাসম্ভব মানসিক চাপ কমাতে হবে। আপনারা অনেকেই ভাবতে পারেন মানসিক চাপের সাথে হাড়ের কী ধরণের সম্পর্ক থাকতে পারে? কিন্তু না, মানসিক চাপের সাথে হাড়ের অনেক গুরুত্বপূর্ণ ও নিবিড় সম্পর্ক রয়েছে। মানসিক চাপে থাকলে দেহে নিঃসরণ হয় কারটিসোল নামক একটি হরমোনের যা আমাদের হাড়ের ক্ষয়ের জন্য বিশেষভাবে দায়ী। তাই মানসিক চাপটাকে যতোটা সম্ভব দূর করার চেষ্টা করুন।

ধূমপান-মদ্যপান বন্ধ

হাড়ের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর হচ্ছে ধূমপান ও মদ্যপান । ধূমপানের ফলে হাড়ের ভঙ্গুরতা স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি হারেই বৃদ্ধি পায়। যারা নিয়মিত ধূমপান ও মদ্যপান করে থাকেন তাদের দেহ খাবারের পুষ্টি সঠিকভাবে দেহে সরবরাহ করতে ব্যর্থ হয়। খাবার খাওয়ার পরেও পুষ্টি যথোপযুক্তভাবে হাড়ে না পৌঁছানোর কারণে হাড় হয়ে যায় দুর্বল ও নরম। আর এর ফলে দেহের অন্যান্য সমস্যার সাথে দেখা দেয় হাড়ের সমস্যাও। তাই ধূমপান ও মদ্যপান বন্ধ করে দিন আজই, এখনই।

ডা. মো: সফিউল্যাহ্ প্রধান

পেইন প্যারালাইসিস ও রিহেব-ফিজিও বিশেষজ্ঞ
যোগাযোগ:- ডিপিআরসি হাসপাতাল লি: (১২/১ রিং-রোড, শ্যামলী, ঢাকা-১২০৭)
শ্যামলী ক্লাব মাঠ সমবায় বাজারের উল্টো দিকে
সিরিয়ালের জন্য ফোন: ০১৯৯-৭৭০২০০১-২ অথবা ০৯ ৬৬৬ ৭৭ ৪৪ ১১

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

ten − 2 =