শিশুদের জ্বরের কারণে খিঁচুনি

পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন
  • 1
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
    1
    Share

শিশুদের জ্বরের কারণে খিঁচুনি

সব মা-বাবাই জ্বরের কারণে খিঁচুনিতে আক্রান্ত শিশুকে নিয়ে আতঙ্কিত হলে পড়েন। মনে রাখবেন, এটি শিশুদের কোনো বিশেষ রোগ নয়। জ্বরের কারণে শিশুর শরীরের অস্বাভাবিক প্রতিক্রিয়া মাত্র। আমনিরে (ছদ্দ নাম) বয়স দেড় বছর। খুব হাসিখুশি ও চঞ্চল। দুই দিন ধরে তার শরীর ভালো নেই। সর্দি, কাশি ও জ্বরে কাবু হয়ে পড়েছে। বাবা-মা ভাবলেন, ভাইরাসজনিত সাধারণ জ্বর, এমনিতেই সেরে উঠবে। আজ জ্বরের ঈস্খকোপ আরো বেড়েছে। জ্বর ১০২0F ছাড়িয়ে যাওয়ার পর আমরিন যেন কেমন করতে লাগল, জ্ঞান হারিয়ে ফেলল, হঠাৎ শূন্য দৃষ্টিতে তাকিয়ে রইল, দাঁত-চোয়াল শক্ত হয়ে গেল, হাত-পা বাঁকা হয়ে যেতে লাগল, সারা শরীর কাঁপতে লাগল। আমরিনের বাবা-মা এ অবস্থা দেখে অত্যন্ত ঘাবড়ে গেলেন। আতঙ্কিত হয়ে দ্রুত ডাক্তারের কাছে ছুটে গেলেন। আমরিনের এ লক্ষণটিই হলো জ্বরের কারণে খিঁচুনি। যাকে Febrile Convulsion বলা হয়ে থাকে।

আসুন জেনে নেই জ্বরের কারণে খিঁচুনি (Febrile Convulsion) সম্পর্কে কিছু তথ্য:

 সাধারণত ছয় মাস থেকে ছয় বছর বয়সী শিশুদের এটি হয়ে থাকে।
 মেয়ে শিশুদের তুলনায় ছেলে শিশুদের এটি বেশি হয়ে থাকে।
 সাধারণত পারিবারিক ইতিহাস (Family history) থাকে।
 খিঁচুনি সমস্ত শরীরব্যাপী (Generalized) হয়ে থাকে। শরীরের শুধু বিশেষ কোনো অংশে আলাদাভাবে হয় না।
 জ্বর > ১০২0F -এর ওপর গেলেই এই খিঁচুনি হয়ে থাকে।
 এই খিঁচুনি অল্প সময় স্থায়ী হয়, সাধারণত ২০ মিনিটের কম স্থায়ী হয়।
 এই খিঁচুনি সাধারণত দিনে একবার (অর্থাৎ জ্বর > ১০২0F থাকলেও ২৪ ঘণ্টায় একবার) হয়।
 এই খিঁচুনির জন্য শরীর বা স্নায়ুতন্ত্রের স্থায়ী কোনো ক্ষতি হয় না।

কী করবেন:

সব মা-বাবাই জ্বরের কারণে খিঁচুনিতে (Febrile Convulsion) আক্রান্ত শিশুকে নিয়ে আতঙ্কিত হয়ে পড়েন। মনে রাখবেন, এটি শিশুদের কোনো বিশেষ রোগ নয়। জ্বরের কারণে শিশুর শরীরের অস্বাভাবিক প্রতিক্রিয়া মাত্র। তাই আতঙ্কিত না হয়ে দ্রুত জ্বর কমাতে নিচের ব্যবস্থাগুলো নিন:

 শিশুর শরীর থেকে সব জামা-কাপড় খুলে ফেলুন।
 ভেজানো তোয়ালে বা গামছা দিয়ে সারা শরীর বারবার মুছতে থাকুন।
 এই সময়ে ফুলস্পিডে ফ্যান চালিয়ে শিশুকে ফ্যানের বাতাসে রাখা যেতে পারে।
 দ্রুত চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।
 প্রয়োজনে কাছের হাসপাতাল, ক্লিনিক বা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে যেতে হবে।

আরও পড়ুনঃ শিশুদের মেজাজ যখন তুঙ্গে।

গণ সচেতনতায় ডিপিআরসি হসপিটাল লিমিটেড

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

5 × 3 =

x

Check Also

শীতে সুস্থ থাকতে করণীয় ও সকালে অলসতা দূর করার উপায়

পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন43         43Shares শীতে সুস্থ থাকতে করণীয় হাড় কাঁপানো ...

দুর্নীতির অভিযোগে দুদকে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের আরো ৫ জনকে তলব করেছে

পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন           দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) সিন্ডিকেট করে ...

শনিবার (১৯ জানুয়ারি) ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন স্থগিত

পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন337         337Shares আগামী শনিবারের (১৯ জানুয়ারি) জাতীয় ভিটামিন ...

কখন সহবাস করলে বাচ্চা হয়?

পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন556         556Sharesঅসংখ্য মানুষের অসংখ্য রকমের সমস্যা। তাই শিরোনাম ...

ভিটামিন “এ” প্লাস ক্যাম্পেইন- ১৯ জানুয়ারী

পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন148         148Sharesসারাদেশে একজোগে পালিত হবে ভিটামিন “এ” প্লাস ...

রাঙামাটিতে ৭৯ হাজার শিশুকে ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে

পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন           সুপ্রিয় চাকমা শুভ, রাঙামাটি: অন্যান্য জেলার ...