চাকুরীজীবি নারীদের ফিট থাকতে করণীয়

পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  

কর্মক্ষেত্রে নারীদের উপস্থিতি এখন অহরহ। আর তাই এখন যুগের সাথে তাল মিলিয়ে চলতে গিয়ে নারীদের পুরুষদের চাইতে বেশিই পরিশ্রম করতে হয়। কারণ তাদের অফিসে কাজ করে ঘরে এসে আবার করতে হয় রান্নাবান্না, ছেলেমেয়েদেরকে সামলানোসহ সংসারের আরো নানান যাবতীয় কাজ। তাই চাকরিজীবী নারীদের নিজেকে সুস্থ রাখার জন্য বিশেষভাবে যত্নবান হওয়া দরকার। তো চলুন জেনে কিভাবে সুস্থ থাকবেন ও ফিট রাখবেন নিজেকে?

আপনার স্বাস্থ্য বিষয়ক যেকোন তথ্য জানতে আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন।
লাইক, কমেন্ট ও শেয়ার করে সাথেই থাকুন

পরিকল্পনা তৈরি করা

প্রথমেই যেটি দরকার সেটি হচ্ছে একটি সুনির্দিষ্ট কর্মপরিকল্পনা বানিয়ে নেওয়া। যা আপনাকে করতে হবে অফিস ও ঘরের কাজের মধ্যে সমন্বয় রেখে। আর এটা আপনাকে অনেক কিছু সহজ করে দিবে পাশাপাশি আপনি একটু সময়ও পাবেন।

দিনটির শুরুতে করণীয়

প্রতিদিন সকালে ঘুম থেকে উঠার জন্য একটি সুনির্দিষ্ট সময় নির্ধারণ নিন। সময়টি এমনভাবে নির্ধারণ করতে হবে যাতে সংসারের যাবতীয় কাজ শেষ করে অফিসে যাওয়ার প্রস্তুতির জন্য পর্যাপ্ত পরিমাণ সময় থাকে ঠিক সেভাবেই তৈরি করতে হবে।

ব্যায়াম করা

প্রতিদিন সকালে ঘুম থেকে উঠে নিয়মিত ব্যায়াম করার অভ্যাস গড়ে তুলুন যা বিভিন্ন ঘরোয়া উপায়ে করতে পারেন। হালকা ও মুক্ত হাতে ব্যায়াম করুন। এতে সারাদিন আপনার শরীর ও মন সজীব ও চাঙা থাকবে। অফিস থেকে ফিরে আসার পরও নিয়মিত ব্যায়াম করতে পারেন যা আপনাকে রাখবে অনেক ফিট।

পানি পান

কাজের চাপে নারীরা অনেক সময় পানি পান করতে ভুলে যান। যা তাদের পানিশূন্যতার কারণ হতে পারে। শুধু তাই নয়, এটি ইউরিন ইনফেকশনের ঝুঁকিও বাড়িয়ে দেয়। তাই অফিসে বা কর্মক্ষেত্রে বিশুদ্ধ পানির ব্যবস্থা রাখা খুবই জরুরি। প্রয়োজনে সঙ্গে পানির বোতল রাখুন যা আপনার দৈহিক সুস্থতার জন্য খুবই জরুরি।

খাদ্য গ্রহণ

অতিরিক্ত ক্যালরিযুক্ত খাবার গ্রহণ করা বন্ধ করুন। আবার খাবার অতিরিক্ত কমও খাওয়া যাবে না। কারণ এতে আপনার শরীর ‍দুর্বল হয়ে যাবে। খাবারের মধ্যে বৈচিত্র্য নিয়ে আসুন। খেয়াল রাখবেন আপনার খাবার তালিকায় ফল ও সবজি যেন পর্যাপ্ত পরিমাণে থাকে।

হাঁটাহাঁটির অভ্যাস জরুরি

অফিসে একটানা বসে কাজ না করে কাজের ফাঁকে একটু হাঁটাহাঁটি করার অভ্যাস করুন। দাঁড়িয়ে কাজ করার অভ্যাসও করতে পারেন। এটি আপনার শরীরকে সক্রিয় রাখতে সহায়তা করবে। যা একটানা বসে থাকা কর্মজীবিদের জন্য খুবই জরুরি বা বলতে পারেন অত্যাবশ্যকীয়।

হালকা খাবার

দীর্ঘক্ষণ খালি পেটে থাকা যাবে না। কারণ তা আপনার শরীরের অ্যাসিডিটিসহ বিভিন্ন রোগ হওয়ার সম্ভাবনা বাড়িয়ে দেয়। সবসময় নিজের সঙ্গে করে হালকা খাবার নিয়ে যাবেন। বিভিন্ন ধরনের ফলমূলসহ নানা ধরণের খাবার রাখতে পারেন।

ডাক্তার দেখানো

আমরা অনেকেই ব্যস্ততার দোহাই দিয়ে ছোটখাটো বিভিন্ন শারীরিক সমস্যাকে অবহেলা করি ।এই ছোটখাটো স্বাস্থ্য সমস্যাই পরে বড় আকার নিতে পারে। তাই অবহেলা করবেন না।

হাসিখুশি থাকুন

কর্মক্ষেত্রে নেতিবাচকতার চর্চা যেমন সহকর্মীদের সঙ্গে পরচর্চায়, পরনিন্দায়, হতাশার কথায় অংশ নেবেন না। নিজের ব্যক্তিগত সমস্যার কথা একান্ত বন্ধুর সঙ্গে শেয়ার করুন অথবা কোন মনোবিদের সহায়তা নিন। সবসময় হাসিখুশি থাকুন ও নিজের কাজকে উপভোগ করুন। দেখবেন আপনি অনেক ভালো আছেন এবং সুস্থ আছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

19 + 18 =