“ডিপিআরসি হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনস্টিক ল্যাব কম খরচে আধুনিকতার ছোয়া”

পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  

“ডিপিআরসি হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনস্টিক ল্যাব কম খরচে আধুনিকতার ছোয়া”

মেডিকেলবিডি ডেস্ক: ‘আস্থা, বিশ্বাস ও নির্ভরতায় অবিচল’ স্লোগান নিয়ে শ্যামলীর প্রাণকেন্দ্র রিং রোডে নিজস্ব ভবনে অবস্থিত “ডিপিআরসি হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনস্টিক ল্যাব লি:” এর যার যাত্রা শুরু হয়েছে ২০০৪ সালে। আধুনিক প্রযুক্তি সমৃদ্ধ যন্ত্রপাতির মাধ্যমে অতি অল্প সময়ে নির্ভুল রিপোর্ট প্রদান করার সুনির্ভরযোগ্য প্রতিষ্ঠান হচ্ছে ডিপিআরসি হাসপাতাল। সর্বাধুনিক যন্ত্রপাতি, দ্রুত রিপোর্ট প্রদান, মনোরম ও রোগী বান্ধব পরিবেশ। একমাত্র ডিপিআরসি হাসপাতালই দিচ্ছে প্যাথলজিক্যাল টেস্টে ৩০% পর্যন্ত ছাড়।

ডিজিটাল ডায়াগনস্টিক ল্যাব: আমাদের রয়েছে সকল ধরণের পরীক্ষা নিরীক্ষার সুবিধা যেমন- হেমাটোলজি, সেরলজি, ইমনোলজি, বায়োকেমিক্যাল, বাইরাল হেপাটাইটিস প্রোফাইল, হরমোনস, কার্ডিয়েক এনজিওমার্কার, ক্লোগোলেশন প্রোফাইল, টিউবারক্লোসিস মাইক্রোবায়োলজি, অটোইমোনোলজি, হিস্ট্রোপ্যাথলজি, সাইট্রোপ্যাথলজি, ক্লিনিক্যাল প্যাথলজি, কিডনী প্রোফাইল ইত্যাদি প্যাথলজিকেল পরীক্ষা। এছাড়াও রয়েছে ওপেন এম.আর. আই, সিটি স্ক্যান, ডিজিটাল এক্স-রে, বিএমডি, ডপ্লেক্স স্ট্যাডি, ইকো কালার ডপলার, ইউএসজি অফ এনামেলি স্ক্যান, ইটিটি, ইইজি, ইসিজি, স্পাইরোমেট্রি ইত্যাদি পরীক্ষা নিরীক্ষা।

ডিপিআরসি অন্যদের থেকে আলাদা: অন্যদের থেকে আলাদা হওয়ার কারণ: শতভাগ নির্ভুল রিপোর্ট প্রদান এবং নিম্নোক্ত পরীক্ষাগুলোর রিপোর্ট অতি দ্রুত সময়ে প্রদান করা হয়- ভিটামিন ডি এনটি সিসিপি, কিডনী প্রোফাইল, আর এখন আইজিএস, সিরাম এ.এন.এ সি.আরপি, লিপিড প্রোফাইল, সিরাম ইলেকট্রোলাইট, লিভার ফাংশন, পিসিটি, সিপিকে, সিরাম এল্ডোলাস, কর্টিসল, টি থ্রি, টি ফোর, টি এস এইচ, এসজি পিটি, এসজি ওটি, সিরাম এমালাইস, বিডিআরএল, এ এস ও, ইত্যাদি পরীক্ষা নিরীক্ষা করে অতি দ্রুত রিপোর্ট প্রদান করা হয়।

পেইন ও আর্থ্রাইটিস সেন্টার: দীর্ঘদিনের অভিজ্ঞতায় অপারেশনবিহীন মানসম্মত পেইন ও আর্থ্রাইটিস চিকিৎসায় শতভাগ সফলতা অর্জন করেছে ডিপিআরসি হাসপাতাল। অপারেশন বিহীন হাটু, কমড়, ঘার ও মেরুদণ্ড ব্যথার চিকিৎসা করা হয়। শতভাগ সফলতার নিশ্চয়তায় অত্যাধুনিক মেশিনারিজ ও অভিজ্ঞ টেকনোলজিস্ট দ্বারা সেবা প্রদান করা হয়।

স্ট্রোকজনীত প্যারালাইসিসের কারণে রোগীর মুখ বাঁকা বা শরীরের যেকোনো অংশ বিকলাঙ্গ হয়ে যেতে পারে এতে রোগী স্বাভাবিকভাবে জীবনযাপনের ক্ষমতা হারিয়ে ফেলে। এমতাবস্থায় রোগীর সঠিক চিকিৎসা অতি জরুরী। আর এ ধরণের চিকিৎসা প্রদানে ডিপিআরসি হাসপাতালই একমাত্র প্রতিষ্ঠান যা শতভাগ নিশ্চয়তায় ও সফলতার সাথে চিকিৎসা প্রদান করে আসছে। হাঁর ক্ষয় রোগ দিন যত বাড়ছে মানুষের হাঁড় তত বেশী ক্ষয় হচ্ছে এতে মানুষের কর্মজীবন বিপন্ন। তাই দরকার এর সঠিক ও স্থায়ী চিকিৎসা।

ডিজিটাল ফিজিওথেরাপী সেন্টার: দেশ যত উন্নত হচ্ছে তার সাথে সাথে মানুষের চিন্তা চেতনায় বিকাশ ঘটছে তার দিকে লক্ষ্য রেখে ডিপিআরসি নিয়ে এসেছে থেরাপিতে আধুনিকতার ছোঁয়া। অভিজ্ঞ টেকনোলজিস্ট এর মাধ্যমে পুরুষ ও মহিলা আলাদা আলাদাভাবে এসে-যেয়ে থেরাপি দেয়ার সুব্যবস্থা দিচ্ছে একমাত্র ডিপিআরসি হাসপাতাল। ইলিকট্রিক মেশিনারিজের মাধ্যমে দেয়া হচ্ছে বিভিন্ন ধরণের থেরাপি। শীততাপ নিয়ন্ত্রিত এ থেরাপি সেন্টারে আলাদা আলাদাভাবে একসাথে দশজন পুরুষ ও দশজন মহিলা থেরাপি দেয়ার সুযোগ পাচ্ছে, যা মানুষের মূল্যবান সময় নষ্ট হচ্ছে না।

ফ্রি রোগী দেখার ব্যবস্থা: একমাত্র ডিপিআরসি হাসপাতালই দিচ্ছে ফ্রি কনসালটেন্সি। প্রতি শুক্রবার সকাল ৯.০০ থেকে দুপুর ১.০০ টা পর্যন্ত বিনামূল্যে রোগী দেখার ব্যবস্থা। তাছাড়াও রয়েছে প্রতিদিন সকাল ৯.০০ থেকে রাত ৯.০০ পর্যন্ত ৫০ টাকা ভিজিটে আউটডোরে রোগী দেখার ব্যবস্থা। মেডিকেলবিডি/এএনবি/ ০৩ ডিসেম্বর, ২০১৯

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

1 × three =