হৃদপিন্ডের জন্মগত ত্রুটি শনাক্তকরণ

পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  

হৃদপিন্ডের জন্মগত ত্রুটি শনাক্তকরণ

গুরুতর হৃদপিন্ডের জন্মগত ত্রুটি সাধারণত গর্ভকালীন সময়ে বা জন্মের পরপরই শনাক্ত করা যায়। কম গুরুতর ত্রুটিগুলো সাধারণত কোনো চিহ্ন বা লক্ষণ থাকে না। ডাক্তাররা এদের শনাক্ত করেন কোনো শারীরিক পরীক্ষার ফলাফলের ওপর ও অন্য কারণে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হলে।

শারীরিক পরীক্ষার সময়- ডাক্তার:

✔শিশুর হার্ট ও ফুসফুস stethoscope দিয়ে শুনবেন।

✔হার্টের ত্রুটির লক্ষণগুলো দেখেবেন যেমন cyanosis (নীলাভ ত্বক, ঠোঁট বা আঙুলের অগ্রভাগ), শ্বাসকষ্ট, দ্রুত শ্বাস, ধীরে গতির বেড়ে ওঠা বা heart failure লক্ষণ।

✔ইকো দিয়ে ডাক্তার স্পষ্ট করে হার্টের গঠন বা কাজ করতে সমস্যা হচ্ছে তা বুঝতে পারেন। ইকো গুরুত্বপূর্ণ পরীক্ষা হার্টের সমস্যা শনাক্তকরণের জন্য আবার দীর্ঘমেয়াদি ফলোআপের জন্য। এর মাধ্যমে হার্টের গঠনের কোনো সমস্যা আছে কি না এবং হার্ট তার মোকাবেলায় কী করছে তা বোঝা যায়। ইকোর সাহায্যে শিশুর হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ নির্ধারণ করতে পারেন চিকিৎসা লাগবে কি না এবং কখন লাগতে পারে।

✔গর্ভাবস্থায় যদি ডাক্তার সন্দেহ করেন আপনার শিশুর হৃদপিন্ডের জন্মগত ত্রুটি আছে Fetal echo করা যেতে পারে। এই পরীক্ষা শব্দতরঙ্গের মাধ্যমে শিশুর হৃদপিন্ডের ছবি তৈরী করে দেখাবে জরায়ুতে থাকাকালীন সময়েই।

✔Fetal echo সাধারণত ১৮ থেকে ২২ সপ্তাহের মধ্যে করা হয়। শিশুর হৃদপিন্ডের জন্মগত ত্রুটি যদি জন্মের আগেই শনাক্ত হয়, আপনার চিকিৎসার চিন্তায় বা পদ্ধতি জন্মের আগেই করে ফেলতে পারেন।

✔ECG (ইলেকট্রোকার্ডিওগ্রাম) এর মাধ্যমে হৃদস্পন্দনের হার কত এবং ছন্দ কেমন (নিয়মিত কি না) জানা যায়।

✔ECG হার্টের চেম্বার কোনোটি বড় হয়েছে কি না শনাক্ত করতে পারে, যার ফলে হার্টের সমস্যা ধরতে সুবিধা হয়।

✔Chest X-ray একটি ব্যথাহীন পরীক্ষা, যা বুকের ভেতরের ছবি তৈরি করে যেমন- হার্ট, ফুসফুস এই পরীক্ষার মাধ্যমে হার্ট বড় হয়েছে কি না বোঝা যায়। ফুসফুসও অতিরিক্ত পানি বা রক্ত চলাচল আছে কি না দেখাতে পারে, যা হার্টের ফেইলিউরের চিহ্ন।

✔Pulse Oximetry: সেন্সরটি রক্তের অক্সিজেনের মাত্রা নির্দেশ করে।

✔Cardiac Catheterization: বিশেষ ডাই ক্যাথেটারের মাধ্যমে দিয়ে রক্তনালী বা হার্টের কোনো চেম্বার দেখা হয়। ডাক্তার Cardiac, Catheter দিয়ে হার্টের চেম্বার ও রক্তনালী ভেতরের প্রেসার বা চাপ ও অক্সিজেন মাত্রা মাপতে পারে। যার ফলে ডাক্তার বুঝতে পারেন রক্ত সংমিশ্রণ হচ্ছে কি না? Cardiac, Catheter দিয়ে হার্টের কিছু ত্রুটিও মেরামত করা যায়।

আরও পড়ুনঃ কী কারণে হৃদপিন্ডের জন্মগত ত্রুটি হয়?

গণ সচেতনতায় ডিপিআরসি হসপিটাল লিমিটেড

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

nineteen + 12 =