মোবাইল ফোন কি স্বাস্থ্য ঝুঁকি বাড়ায়?

পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন
  • 99
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
    99
    Shares

মোবাইল ফোন কি স্বাস্থ্য ঝুঁকি বাড়ায়?

বিশ্বে এখন আবাল বৃদ্ধ বনিতা মোবাইল ফোন ব্যবহার করছে এবং এর ব্যবহার ক্রমেই বৃদ্ধি পাচ্ছে। মোবাইল ও স্মার্টফোন থেকে এক প্রকার এনার্জি বের হয়, যাকে বলা হয় রেডিও ফ্রিকোয়েন্সি ওয়েভ। এই ওয়েভ যেকোনো জীব ও প্রাণীর ক্ষতি চাড়া উপকার করে না। তাই পৃথিবীর জ্ঞানীগুনীরা এ নিয়ে চিন্তিত। অধুনা ব্রেন টিউমার রোগীর সংখ্যা বেড়ে যাচ্ছে বিজ্ঞানীরা বলেছেন, এর কারণও অতিমাত্রায় সেলফোন ব্যবহার।

সেল ফোন কিভাবে কাজ করে:

মোবাইল নিকটস্থ কোনো সেল টাওয়ারে সিগন্যাল পাঠায় এবং প্রাপ্ত হয় রেডিও ফ্রিকোয়েন্সির মাধ্যমে। কারো কারো মতে, এতে এত শক্তি নেই যে, আমাদের DNA Cell ক্ষতি করতে পারে। এখন প্রশ্ন হলো, তাহলে আমরা কিভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হই। মোবইল ফোনের রেডিও ফ্রিকোয়েন্সি আসে অ্যান্টেনা থেকে, যা আমাদের শরীরের কিছু স্পর্শের সাথে যুক্ত। মোবাইল ফোন আমাদের মাথার এক পাশে যুক্ত থাকে, যেটা অ্যান্টেনার খুব সন্নিকটে, যা রেডিও ফ্রিকোয়েন্সি (আর এফ) যত বেশি আমাদের শরীরে যায়, তত বেশি ক্ষতি হয়। শরীরে বিদ্যুৎ চালিত হয়। তবে হ্যান্ড ফ্রি ডিভাইসে কম ক্ষতি হয়। যে পরিমাণ RF Energy আমাদের শরীরে চালিত হয়, তাকে বলে SAR (Specific Absorption Rate) তবে বিভিন্ন প্রকার সেলফোনে বিভিন্ন প্রকার SAR থাকে। এ সম্পর্কে প্রস্তুতকারীদের ওয়েবসাইটে তথ্য পাওয়া যায়। আবার ক্রয়কৃত ফোনের প্যাকেটের ম্যানুয়েলেও পাওয়া যায়। যুক্তরাষ্ট্রের এই SAR এর সর্বোচ্চ গ্রহণযোগ্য পরিমাণ হলো ১.৬ watts per kilogram of body weight.

মোবাইল ফোন ব্যবহারে কি ব্রেণ টিউমার হয়?

এ পর্যন্ত গবেষকরা গবেষণা করে যা পেয়েছেন, তাতে দেখা যায় ব্রেন ট্রিউমারের সাথে মোবাইল ফোন ব্যব্যবহারের কোনো সম্পর্ক নেই। তবে তারা এখনো গবেষণা চালিয়ে যাচ্ছেন এই লক্ষ্যে যে, দীর্ঘ দিন মোবাইল ফোন ব্যবহারে বা শিশুরা সেলফোন ব্যবহার করলে কোন ক্ষতি হয় কিনা।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা WHO- এর গবেষণা প্রতিষ্ঠান The International Agency for Research on Cancer- এর প্রধান লক্ষ্য হলো কী কী কারণে ক্যান্সার হয় তা আবিষ্কার করা। ওই গবেষণা প্রতিষ্ঠান গবেষণায় বলেছে, RF সম্ভবত মানুষের জন্য। Carcinogenic অর্থ্যাৎ, ক্যান্সার হওয়া সম্ভব। বিশেষ করে যারা অধিক সেলফোন ব্যবহারকারী, তাদের ব্রেন টিউমার হওয়ার ঝুঁকি থাকে। তবে যুক্তরাষ্ট্রের EPA and NTP প্রতিষ্ঠান দুটি মনে করে না যে, সেলফোন ব্যবহারকারীরা ক্যান্সার ঝুঁকিতে আছে।

কিভাবে সেলফোন ব্যবহার নিরাপদ?

যেসব সেলফোনে SAR Value কম সেসব ব্যবহার করা শ্রেয়। মোবাইল ফোনের সাথে সরবরাহকৃত লিফলেটে এর উল্লেখ থাকে।

*Speaker mode অথাব কর্ডযুক্ত ফোন ব্যবহার করুন।
*বেশি কথা না বলে মেসেজের মাধ্যমে ব্যবহার করুন।
*যথাসম্ভব মোবাইল ফোন কম ব্যবহার করে টেলিফোনে কথা বলুন। এটা সম্পূর্ণ নিরাপদ।
*গাড়ি চালোনোর সময় সেলফোনে কথা বলা নিষিদ্ধ করুন।

গবেষকেরা এখনো শতভাগ নিশ্চিত নন যে, সেলফোন ব্যবহারে ব্রেন টিউমার হয়। তাই সবাইকে সেলফোন ব্যবহারে সর্তক হতে হবে। কারণ, এই ফোনের ব্যবহার ক্রমেই বাড়ছে। বিশেষ করে শিশুদের সেলেফোন ব্যবহার নিষিদ্ধ হওয়া উচিত।

আরও পড়ুনঃ বিয়ের প্রস্তুতি! আপনাকে যা জানা প্রয়োজন।

গণ সচেতনতায় ডিপিআরসি হসপিটাল লিমিটেড

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

1 × 5 =

x

Check Also

বিশ্ব এইডস দিবস উপলক্ষে র‌্যালী ও আলোচনা সভা

পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন          আসাদুল ইসলাম সবুজ, লালমনিরহাট: ১লা ডিসেম্বর বিশ্ব ...

জিয়া পরিবারের দুঃসময়ের বন্ধু নোয়াখালী-৩ আসনে বিএনপির মনোনয়ন পেলেন ডা: দোলন

পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন10         10Sharesমোহাম্মদ আলাউদ্দিন, নোয়াখালী: বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান ...

মহিলাদের হাড়ক্ষয় প্রতিরোধে ক্যালসিয়ামের ভুমিকা

পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন156         156Sharesবয়সের সাথে সাথে হাড় ক্ষয় একটি অবধারিত ...

বরগুনায় সরকারী হাসপাতালে সম্মানী নিয়ে রোগীর চিকিৎসা

পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন21         21Sharesমোঃ মেহেদী হাসান, বরগুনা: বরগুনায় সরকারী হাসপাতালে ...

ওভারিয়ান সিস্ট নাকি টিউমার? কখন কি করা উচিত….

পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন99         99Sharesওভারিয়ান সিস্ট এবং টিউমার দুটি আলাদা বিষয় ...

বন্ধ্যাত্বের চিকিৎসা ল্যাপারোস্কপি কখন এবং কেন করা হয়?

পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন140         140Sharesল্যাপারোস্কপি একধরনের সার্জিক্যাল চিকিৎসা পদ্ধতি যার মাধ্যমে ...