ব্রিভমেন্ট কাউন্সিলিং – স্বজন হারানোর স্বাভাবিক প্রতিক্রিয়া সঠিকভাবে অনুভব করা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ

পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
ব্রিভমেন্ট কাউন্সিলিংব্রিভমেন্ট কাউন্সিলিং

 

ব্রিভমেন্ট কাউন্সিলিং –  স্বজন হারানোর স্বাভাবিক প্রতিক্রিয়া সঠিকভাবে অনুভব করা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ

 

এক্ষেত্রে সর্বপ্রথম স্বজন হারানোর স্বাভাবিক প্রতিক্রিয়া সঠিকভাবে অনুভব করা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। কারণ আপাতদৃষ্ঠিতে অনেকেই এটাকে মানসিক রোগ বলে ভুল করেন যেমন- শোকাহত স্বজন অসহ্য মৃত ব্যক্তির উপস্থিতি বা মৃত ব্যক্তিকে চোখে দেখতে পায়।

শোকে বিহ্বল

এ ব্যাপারে পরিবারের সদস্যদের গভীরভাবে আশ্বস্ত করতে হবে এ ধরনের প্রতিক্রিয়া খুবই প্রত্যাশিত এবং সময়ের সাথে সব ঠিক হয়ে যাবে।
জীবিত স্বজনদের স্বজনহারোনোর রূঢ় বাস্তবতা মেনে নিতে হবে তাদের আবেগ নিয়ন্ত্রণের স্বার্থে। নিজেদের মধ্যে মৃতব্যক্তি সম্পর্কে ঘনঘন আলোচনা যাতে নিজেদের সনাক্তকরণ ও অনুভূতির বহিঃপ্রকাশ ঘটে। এক্ষেত্রে ক্রোধ ও অপরাধবোধেই সাধারণভাবে আবেগ হিসেবে প্রকাশ পায়।
ক্রোধটা সাধারণত মৃতব্যক্তি, অন্যান্য পারিবারিক সদস্য, রোগীর চিকিৎসক এমনকি বিধাতার ওপরও হতে পারে। এ ক্রোধকে প্রশমিত করা জরুরি। হতাশা থেকে নিজের ওপর অরাধবোধজনিত রাগের উৎপত্তি ঘটতে পারে এক্ষেত্রে ক্লিনিক্যালি রোগীর বিষণœতা ও আত্মহত্যার চিন্তা ইত্যাদি সনাক্তকরণ জরুরি। দুশ্চিন্তা ও অসহায়ত্ব অনুভবকারী শোককে সহজে কাটিয়ে উঠতে পারে না।

 

 

শোকাহতদের স্বজনের মৃত্যুপূর্ব প্রাণশক্তি উৎসকে উন্মোচন করে দেখাতে হবে যে তারা শোক কাটিয়ে উঠতে সক্ষম। আর যখনই দুঃখ হবে শোকার্ত স্বজনকে কাঁদতে দিতে হবে।
সদ্য স্বজনহারা ব্যক্তিদের আগের নতুন ভূমিকায় দ্রুত মানিয়ে নিতে হবে। শোকে অন্ধ হয়ে জীবনের কোনো গরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নেয়াকে নিরুৎসাহিত করা জরুরি।
সময় যতই গড়াবে ততোই মৃতব্যক্তির স্মৃতি বিজড়িত আবেগ থেকে সরে আসা এবং একই সাথে সমাজে তার নতুন ভূমিকায় অবতীর্ন হতে উৎসাহিত করুন।

 

 

এটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ ওই সমস্ত স্বজনদের সনাক্তকরণের ক্ষেত্রে। যাদের কাছে শোকের ধাক্কা সামলানো দুরূহ এবং যারা শোকের সময় মানসিক বৈকল্যে ভোগে ( যেমন সাইকোসিস/ক্লিনিক্যাল ডিপ্রেশন/অ্যাংজাইটি ইত্যাদি। কেউ কেউ অসহ্য হয়ে মদ্যপান, ড্রাগ, ডিনায়াল, আইডিয়ালাইজেশন ইত্যাদিকে বেছে নেয় শোক কাটানোর উপায় হিসেবে।
এই ধরনের ব্যক্তিদের যথাযথ স্থানে যেমন-মানসিক রোগ বিশেষজ্ঞ বা ব্রিভমেন্ট কাউন্সিলে ( আমাদের দেশে এই কাউন্সিলর আছে কি না জানা নেই) পাঠাতে হবে।

‘ব্রেকিং এ ব্যাড নিউজ’ অর্থাৎ কোনো দুঃসংবাদ আপনি কি করে প্রিয়জনকে দেবেন ?

 

আরও পড়ুন : মনোযৌন সমস্যা কি?

গণ সচেতনতায় ডিপিআরসি হসপিটাল লিমিটেড

 

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

15 − thirteen =

x

Check Also

ড্রাগ (drug) দ্বারা সৃষ্ট মানসিক নির্ভরতা আপনাকে কিভাবে প্রভাবিত করছে?

পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন61         61Sharesড্রাগ (drug) শব্দটি ওষুধ বা medicine-এর সমার্থক ...

উদ্বেগ রোগ বা অ্যাংজাইটি ডিসঅর্ডার (পর্ব – ১)

পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন100         100Sharesউদ্বেগ এককভাবে একটি উপসর্গ। আবার উদ্বেগের কারণে ...