ঘাতকব্যাধি এইডস প্রয়োজন প্রতিরোধ

পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন
  • 46
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
    46
    Shares

ঘাতকব্যাধি এইডস প্রয়োজন প্রতিরোধ

১৯৮৮ সাল থকে ঘাত ব্যাধি এইডস প্রতিরোধের প্রত্যয় নিয়ে ১ ডিসেম্বর পালিত হয় বিশ্ব এইচডস দিবস। ১৯৮০ সালের গোড়ার দিকে নজরে আসা এ রোগটি এখন সারা বিশ্বে মহামারী আকারে বিদ্যামন। এইচআইভি একটি ভাইরাসের নাম। মানুষের রোগ প্রতিরোধক্ষমতা নষ্টকারী ভাইরাস। এ ভাইরাসে আক্রান্ত হলে ধীরে ধীরে শরীরের রোগ প্রতিরোধক্ষমতা একেবারে শেষ হয়ে যায়। প্রথম দিকে কোনো লক্ষণ দেখা যেতে না ও পারে। দীর্ঘ দিন পর হয় এইডস। বছর দশেকও লাগতে পারে। রোগ প্রতিরোধক্ষমতা না থাকায় এইডস রোগীর যক্ষ্মা, নিউমোনিয়া, ডায়রিয়া, ক্যান্সার ইত্যাদি যোকোনো অসুখ হতে পারে এবং অল্প দিনের মধ্যে আক্রান্ত ব্যক্তি মারা যেতে পারে। এইডসের কোনো চিকিৎসা নেই। বিশ্বে প্রতিদিন সাত হাজারের মতো লোক এইচআইভি এইডসে আক্রান্ত হয়। আর এইডসে দৈনিক মারা যায় হাজার ছয়েক রোগী। বর্তমান পৃথিবীতে প্রায় চার কোটি লোক এইচআইভি সংক্রমতি। কোনো দেশ কম, কোনো দেশে বেশি। আফ্রিকার দক্ষিণাঞ্চলের লোকজনের মধ্যে এইচআইভি সংক্রমণের হার ব্যাপক, প্রতি পাঁচজনে প্রায় একজন। আফ্রিকার অন্যান্য অংশেও এ রোগটি কম নয়। এ উপমহাদেশের ভারতে প্রায় ০.৩ শতাংশ লোক এইচআইভি আক্রান্ত।
আমাদের দেশে এইচআইভি আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা মোট জনসংখ্যার ০.০১ শতাংশের কম। এও দেশে এইডসের প্রথম রোগী শনাকত্ হয় ১৯৮৯ সালে। পরিসংখ্যানের হিসাবে সংখ্যায় কম দেখালেও আমাদের দেশে এইডসের ঝুঁকি বিস্তর। বাংলাদেশের ভৌগোলিক অবস্থান ও আর্থসামাজিক অবস্থা এইডস বিস্তারের সহায়ক। এ দেশে যৌনকর্মী ও মাদকাসক্তদের মধ্যে এইচআইভি সংক্রমণের হার বেশি। ইনজেকশনের মাধ্যমে মাদক গ্রহণকারীদের মধ্যে প্রায় ৫ শতাংশ আর যৌনকর্মীদের প্রায় ১ শতাংশ। এ ছাড়া বিশ্বায়নের যুগে বিভিন্ন প্রয়োজনের আন্তঃদেশীয় গমনাগমনের কারণে আমাদের দেশে এইচআইভি ও এইডসের ঝুঁকির মধ্যে আছে। এইডসের কোনো চিকিৎসা সেই। আক্রান্ত হলে নিশ্চিত মৃত্যু। সুতরাং প্রতিরোধ বিশেষ জরুরি।

প্রতিরোধ করতে হলে রোগটি ছড়ানোর উপায় আগে জানতে হবে। আক্রান্ত রোগীর রক্তে, বীর্যে ও বুকের দুধে এ রোগের জীবাণু থাকে এবং এগুলো থেকে জীবানু ছড়ায় সুস্থ মানুষের দেহে। ছড়ায় আক্রান্ত ব্যক্তির সাথে অনিরাপদ যৌন মিলনের মাধ্যমে, ছাড়য় আক্রান্ত ব্যক্তির ব্যবহার করা সুঁই বা সিরিঞ্জ ব্যবহারে করে শিরায় বা পেশিতে মাদক গ্রহণের মাধ্যমে। যৌনকমীৃর সাথে যৌনমিলন এবং ইনজেকশনের মাধ্যমে মাদক ব্যবহার করে মাদকাসক্ত হওয়া খুবই ঝুঁকিপূর্ণ। রক্ত পরিসঞ্চালনের মাধ্যমে এই ভাইরাস ছাড়াতে পারে। ভাইরাস ছড়াতে পারে এইচআইভি বা এইডসে আক্রান্ত গর্ভবতী মহিলার শরীর থেকে গর্ভফুল ও নাড়ির মাধ্যমে গর্ভবস্থায় শিশুর শরীরে। ছড়াতে পারে আক্রান্ত মহিলার সন্তান প্রসবকালে। এইচআইভি বা এইডসে আক্রান্ত স্তন্যদানকারী মহিলার বুকের দুধের মাধ্যমেও শিশুর শরীরে প্রবেশ করতে পারে জীবাণু।

সুতরাং অনিরাপদ যৌনমিলন পরিহার, ইনজেকশনের মাধ্যমে মাদক বর্জন, পরীক্ষিত রক্তসঞ্চালন ইত্যাদি পন্থা অবলম্বন করে এইডন প্রতিরোধ করতে হবে। যৌনমিলন, সুচ-সিরিঞ্জের ব্যবহার এবং রক্ত গ্রহণের ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ সতর্কতা গ্রহণ করতে হবে। সংক্রমতি মহিলাদের গর্ভধারণে বিরত থাকতে হবে। অ্যান্টিরেট্রোভাইরাল চিকিৎসা কার্যকর হতে পারে। সংক্রমিত মহিলাদের বুকের দুধ দেয়া থেকে বিরত থাকতে হবে। এসব ব্যাপারে প্রয়োজন গণসচেতনতা। প্রয়োজন সামাজিক, রাজনৈতিক ও ধর্মীয় আন্দোলন।

এইডসের কোনো চিকিৎসা বা প্রতিষেধক আবিষ্কার হয়নি। তবে মিতাচারী ও নৈতিক জীবনাচারের মাধ্যমে এইডস বিস্তার রোধ সম্ভব। দুঃখের বিষয়, ইলেকট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়ার মাধ্যমে অনৈতিকতা ও যৌন উচ্ছঙ্খলতায় সয়লাব হয়ে যাচ্ছে, যা এইডস ও বিভিন্ন যৌনরোগের বিস্তার বাড়াচ্ছে, এ বিষয়ে সচেতন হতে হবে।

গণ সচেতনতায় ডিপিআরসি হসপিটাল লিমিটেড

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

five × 4 =

x

Check Also

ইবিতে ক্যাপের উদ্যোগে স্তন ক্যান্সার সচেতনতা দিবস পালিত

পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন11         11Shares মুরতুজা হাসান, ইবি: ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে (ইবি) ...

উচ্চতা অনুযায়ী আপনার আদর্শ ওজন কতো থাকা উচিত?

পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন80         80Sharesআমরা কোনো কিছু না ভেবে শুধু দেখেই ...

বাচ্চা তো আমার কোন কথাই শোনেনা!

পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন62         62Sharesবাচ্চার ‘কথা শোনা’ বা ‘না শোনার’ পুরো ...

জেনিটাল ওয়ার্টস কত ভয়ঙ্কর?

পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন61         61Sharesজেনিটাল ওয়ার্টস জেনিটাল ওয়ার্টসকে সাধারণ বাংলায় বলে ...

ভাইরাল ওয়ার্টস বা আঁচিল হতে মুক্তিলাভ

পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন74         74Sharesভাইরাল ওয়ার্টস বা আঁচিল এক ধরনের টিউমারের ...

গর্ভাবস্থায় শরীরে বিভিন্ন স্থানে ব্যথা, কি করে রেহাই পাবেন?

পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন636         636Sharesগর্ভাবস্থায় বিভিন্ন ব্যথাঃ গর্ভাবস্থায় প্রায়ই শোনা যায় ...