ডালিম বা বেদানার পুষ্টি ও ঔষধি গুণ

পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  

ডালিম বা বেদানার পুষ্টি ও ঔষধি গুণ

ডালিম বা বেদানার পুষ্টি ও ঔষধি গুণ

ডালিম বা বেদানার পুষ্টি ও ঔষধি গুণ

ছোট বড় সকলের অনেক প্রিয় এই ফল ডালিম। একদিকে এর আকর্ষণীয় রং ও স্বাদসহ অবর্ণনীয় পুষ্টি উপাদান ও স্বাস্থ্য উপকারিতা রয়েছে। ডালিম ক্ষিদে বাড়নো, শরীর স্নিগ্ধ করা, মেদ ও বল বৃদ্ধি করা সহ রুচি বৃদ্ধি, অরুচি দূর, শ্বাসকষ্ট, কাশি ও বাত ব্যধি দূরসহ বিভিন্ন স্বাস্থ্য গুনাগুণ। ডালিমের বিভিন্ন ঔষধি গুনাগুণ সম্পর্কে নিম্নে বিস্তারিত আলোচনা করা হলো। ডালিম বা বেদানার মধ্যে রয়েছে বিভিন্ন রোগ প্রতিরোধী গুনাগুণ। তবে কিছুটা দামি হওয়ার কারণে অনেকেই ডালিম খেতে চান না। নিয়মিত ডালিম খেলে তা দেহের বহু উপকার পাওয়া যায়। চলুন জেনে নেয়া যাক ডালিমের স্বাস্থ্য উপকারিতা সম্পর্কে। ডালিম বা বেদানার মধ্যে রয়েছে বিভিন্ন রোগ প্রতিরোধী গুনাগুণ। তবে কিছুটা দামি হওয়ার কারণে অনেকেই ডালিম খেতে চান না। নিয়মিত ডালিম খেলে তা দেহের বহু উপকার পাওয়া যায়। চলুন জেনে নেয়া যাক ডালিমের স্বাস্থ্য উপকারিতা সম্পর্কে।

 ডালিম বা বেদানার পুষ্টি ও ঔষধি গুণ:

  • হৃৎপিণ্ড সুস্থ রাখে।
  • দেহের ত্বক সুস্থ ও উজ্জ্বল রাখতে সাহায্য করে।
  • রক্তশূন্যতা দূর করে।
  • হাড় ভালো রাখে।
  • সর্দি-কাশি দূর করে।
  • দাঁতের যত্নে উপকারি।
  • রক্তে শর্করার পরিমানের ভারসাম্য বজায় রাখে।
  • ডালিম বা বেদানার রস ক্যান্সার প্রতিরোধে অনেক উপকারি খাদ্য।
  • বয়সের ছাপ কমায়।
  • রক্তের তারল্য ঠিক রাখে।
  • রক্তে অক্সিজেনের মাত্রা বাড়ায়।
  • আর্থ্রাইটিস থেকে রক্ষা করে।
  • স্মৃতিশক্তি বাড়ায়।
  • হজমে সহায়তা তরে।
  • রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়।
  • হিমোগ্লোবিন বৃদ্ধি।
  • প্রাকৃতিক ইনসুলিন হিসেবে কাজ করে।
  • ডালিম ডায়াবেটিসের জন্য উপকারী।

ডালিমের পুষ্টিমানঃ

ডালিম মজাদার ও পুষ্টিকর একটি ফল। ফলটির প্রচুর পুষ্টিগুণরয়েছে । এক কাপ ডালিম দানায় রয়েছে আপনার দৈনন্দিন চাহিদর ৩০ শতাংশ ভিটামিন সি, ৩৬ শতাংশ ভিটামিন কে, ১৬ শতাংশ ভিটামিন বি৯ ও ১২ শতাংশ পটাশিয়াম। এতে প্রচুর পরিমাণ ফসফরাস  রয়েছে যা কমলা, আপেল ও আমের চেয়ে চারগুণ, আতা ও আঙ্গুরের চেয়ে দ্বিগুণ, বরই ও আনারসের চেয়ে প্রায় সাতগুণ বেশি। এর প্রতি ১০০ গ্রাম ডালিমে ৭৮ ভাগ পানি, ১.৫ ভাগ আমিষ, ০.১ ভাগ স্নেহ, ৫.১ ভাগ আঁশ, ১৪.৫ ভাগ শর্করা, ০.৭ ভাগ খনিজ, ১০ মিলিগ্রাম ক্যালসিয়াম, ১২ মিলিগ্রাম ম্যাগনেসিয়াম, ১৪ মিলিগ্রাম অক্সালিক এসিড, ৭০ মিলিগ্রাম ফসফরাস, ০.৩ মিলিগ্রাম রিবোফ্লাভিন, ০.৩ মিলিগ্রাম নিয়াসিন, ১৪ মিলিগ্রাম ভিটামিন সি ইত্যাদি থাকে।

মেডিকেলবিডি/আরএম/ ১১ জুন, ২০২১

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

1 × 1 =